ফেইসবুক মার্কেটিং এর ৬টি টিপস

ফেইসবুক এর মাধ্যমে কিভাবে বিজনেস করা যায় তাই আলোচনা করা হবে এই পোস্টটি

বাংলাদেশে প্রায় ৪ কোটির মত ফেইসবুকে ইউজার আছে আর সবচেয়ে বেশি আছে ঢাকাতে। আপনি বিজনেস শুরু করেছেন বা আর্লি স্টেজে আছেন, বাকি সব চ্যানেল বাদ দিয়ে আপনি শুধুমাত্র ফেইসবুক এ মার্কেটিং করেই কাস্টমার বেইজ গড়ে তুলতে পারবেন।

৬টি উপায়ে আমরা ফেইসবুককে কাজে লাগাতে পারি এবং বিজনেস করতে পারি। 




 

Facebook Marketing



১. ক্যারোজাল পোস্ট

শুধুমাত্র ১টি ইমেইজ বা ভিডিও দিয়ে পোস্ট করার বিষয়টা আমরা সবাই জানি, কিন্তু ক্যারোজাল পোস্ট দিয়ে আপনার মাল্টিপল প্রোডাক্ট বা সার্ভিস এর ইমেইজ ব্যবহার করার সুযোগ পাচ্ছেন। ইমেজের সাথে আপনার লিংক এ্যাড করে দিতে পারেন। এইবাবে আপনি অনেকগুলো ইমেজ পোস্ট করার মাধ্যমেও অনেক তথ্য দিয়ে থাকতে পারেন। কারণ ছবি কথা বলে বলে একটা কথা প্রচলিত আছে। ক্যারোজাল পোস্ট এর মাধ্যমে একজন ইউজার একটা পোস্ট এর মাধ্যমে অনেক তথ্য পেতে পারে যদি সেভাবে করা হয়। তাই ৫টা পোস্ট করার থেকে একটা পোস্টে ৫টা পোস্টের তথ্য ক্যারোজাল পোস্ট এর মাধ্যমে দেওয়া যেতে পারে। 



২. ইন্সটেন্স এক্সপেরিয়েন্স

ইন্সটেন্স এক্সপেরিয়েন্স পোস্টও আপনাকে আপনার কম্পিটিটর থেকে আলাদা রাখবে। কারণ খুব কম মানুষ এই ইউনিক ফিচারটি ইউজ করে ফেইসবুকে পোস্ট করে থাকে। আকর্ষণ করানোর জন্য সাধারণত এই ধরনের পোস্ট করা হয়ে থাকে। অনেক সময় আমরা দেখি যে বড় পোস্টগুলোর চাইতে ছোট পোস্ট বা ইন্সটেন্স এক্সপেরিয়েন্স যুক্ত মানে পোস্ট করার সময় যেটা আসে বক্স এর মত সেটা দেখে বা পড়ে বেশি। তাই কম কথায় বেশি আকর্ষন করানোর জন্য এই ধরনের পোস্ট করা যেতে পারে। 


৩. চ্যাটবট

অনেক সময় আমরা অনেকের ম্যাসেজের উত্তর দিতে পারি না আর পেজের অটো উত্তরের জন্যই মূলত ব্যবহার করা হয় এই চ্যাটবট। একটা সুন্দর উত্তর দেওয়ার মত করে অটো করে রাখলে আপনি সহজেই আরেকজনের নজরে আসতে পারবেন। তাই এই বিষয়টা নজর দেওয়া উচিত যদি ফেইসবুক মার্কেটিং এর মাধ্যমে আমরা বিজনেস করতে চাই। 



৪. ফেইসবুক লাইভ ভিডিও

অনেকেই লিখতে চায় না বা অনেক সময় লেখার পরিবেশও থাকে না আর তখন ক্রেতাদের আকর্ষন করানোর জন্য এই টিপসটা অনেক কার্যকরী। কারণ আপনি ৩০ মিনিট লিখার চাইতে ৩ মিনিট লাইভে অনেক কথা বলে মনের ভাব প্রকাশ করতে পারেন। বিভিন্ন পণ্য নিয়ে আপনি লাইভ করতে পারেন। লাইভ পেজ, টাইমলাইন ও গ্রুপের মাধ্যমে করা যায়। 


৫. লিড ক্যাম্পেইন

বুস্ট করে অনেক সময় টাকার নষ্ট হয় আসল কাজ হয় না। তাই লিড ক্যঅম্পেইন করে আপনি আপনার কাঙ্খিত লক্ষ্য পূরণ করতে পারেন। এর মাধ্যমে আপনি কম খরচে টার্গেট কাস্টোমার পেতে পারেন। আর এইটা আমরা ইউপিটউব সার্চ দিয়েই শিখতে পারি। 



৬. ফেইসবুক গ্রুপ

বর্তমানে ফেইসবুক গ্রুপের মাধ্যমে অনেক বেশি পণ্য সেল করা হয়ে থাকে। যার উদহারণ অনেক আছে। নিজের বলার মত গল্প এবং উই নামের দুইটা গ্রুপ বর্তমানে টপে আছে যার সদস্যা সংখ্যা অনেক বেশি। উই গ্রুপের বেশিভাগ সদস্যা নারী আর তারা ফেইসবুক গ্রুপ ব্যবহার করে মাসে লাখ টাকার মত আয় করে থাকে। তাই আমি বলবো ফেইসবুক গ্রুপের মাধ্যমে আপনি মার্কেটিং করতে পারেন। 


এর পাশপাশি অন্য অনেক ভালো গ্রুপ আছে যেখানে আপনি মেম্বার হিসাবেও একটিভ থেকে পোস্ট করে ভালো রেজাল্ট পেতে পারেন। আমার পরিচিত এক আপু কাপড়ের ব্যবসা শুরু করেছে সে সুন্দর করে কাপড়ের বর্ণনা দিয়ে থাকে আর বর্ণনা দেখে প্রতিদিনই অডার আসে। তিনি অল্পদিনে ভালো আয় করা শুরু করেছে। এইভাবে আপনি ইচ্ছে করলেই মাসে ২০-৩০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। এভাবে অনেকেই তাদের মূল্যাবান কথা বা ফেইসবুকের টিপসগুলো ফলো করে মার্কেটিং করে যাচ্ছে। 




তো এই ৬টি টিপস আপনি কাজে লাগাতে পারেন ফেইসবুক থেকে সাফল্য পাওয়ার জন্য।  বর্তমানে ফেইসবুককে কাজে লাগিয়ে যারা আয় করছে তাদেরকে ফলো করে আপনিও অনেক কিছু শিখতে পারেন। আমি বলবো অযাথা সময় নষ্ট না করে আজই আপনি আপনার কাজ শুরু করে দিন।

Leave a Comment