গুগল অ্যাডসেন্স এ Invalid Click সমস্যা ও সমাধান

গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়া শর্তাবলিঅ্যাডসেন্স লিমিট হওয়ার কারণ জানতে চাই। গুগল অ্যাডসেন্স এ আয় কিভাবে বাড়ানো যায় দ্রুত এসব প্রশ্নের উত্তরের আলোকেই আজকের আর্টিকেলটি।


ব্লগার বা ওয়েবসাইট থেকে আয় করার অন্যতম মাধ্যম হিসেবে গুগল অ্যাডসেন্সকে বিবেচনা করা হয়। বর্তমান সময়ে নতুন যারা গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আয় করার চিন্তায় আছেন বা করার জন্য এই সেক্টরে আসতেছেন তারা বেশিরভাগই এই সমস্যায় পড়েছেন। অ্যাডসেন্স অপ্রুভাল হওয়ার কিছুদিনের মধ্যেই গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাড লিমিট বা ডিজএবল হয়ে যায়। যদিও লিমিট হওয়ার পরিমাণটা অনেকটাই বেশি। 


গুগল অ্যাডসেন্স এ Invalid Click সমস্যা ও সমাধান





লিমিট হওয়ার পেছনে অন্যতম কারণ হিসেবে বিবেচনা করা হয় ইনভ্যালিক ক্লিক বা Invalid Click ও ইনভ্যালিড ট্রাফিক বা Invalid TrafficInvalid Click এর কারণেই মূলত বেশিভাগ অ্যাড লিমিট হয়। 



আরো পড়ুন >> Super Seo Premium Theme Download Link.
আরো পড়ুন >> Droid Premium Theme Download Link.
আরো পড়ুন >> Newspeed Premium Theme Download Link.



ব্লগারের অ্যাডসেন্সগুলো সবচেয়ে বেশি লিমিট হয় আর ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে যারা জানেন বিষয়টা তাদেরটা কম হয়। কারণ ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে কিছু প্লাগইন আছে যা ব্যবহার করলে আপনি নিজেই মনিটরিং করতে পারবেন এইসব Invalid Click. আর যখন আপনি নিজেই Invalid Click সম্পর্কে জানতে পারবেন সেগুলো সমাধান করলেই সমস্যা আর থাকবে না। আমি কিছু কারণ আগে বলছি কি কি কারণে Invalid Click বেশি আসে আর সমস্যা হয় গুগল অ্যাডসেন্স এ। যেমন, 



Invalid Click আসার কারণসমূহঃ

(১) অ্যাডসেন্স পাওয়ার পর সাইটের লিংক বেশি শেয়ার করলে। 

(২) সাইটের লিংক পরিচিতদের জানালে অনেক সময় শত্রুতা করেও Invalid Click দিয়ে থাকে। 

(৩) Auto অ্যাড যাদের অন থাকে তাদের এই সমস্যাটা বেশি হয় সাধারণত। 

(৪) নিজে বারবার সাইট ভিজিট করলে বা নিজে নিজে ক্লিক করলে। 

(৫) পেইড ভিজিটর এর মাধ্যমে পেইড ক্লিক করলে অনেক সময় Invalid Click আসে। 

(৬) কাস্টোমাইজ থিমের কারণেও অনেক সময় এমন হয়। 

(৭) পোস্ট এ প্রয়োজনের বেশি অ্যাড দিয়ে রাখলে। 







Invalid Click থেকে বাচার উপায়সমূহঃ

(১) প্রিমিয়াম থিম ব্যবহার করা। কারণ প্রিমিয়াম থিমের ভাইরাস বা কোন সমস্যা থাকে না। 

(২) লিংক বেশি বেশি শেয়ার না করা। বিশেষ করে পরিচিতদের মাঝে। 

(৩) অটো অ্যাড Off করে ম্যানুয়্যাল অ্যাডস দেওয়া। 

(৪) ওয়ার্ডপ্রেস হলে প্লাগইনের মাধ্যমে চেক করা নিয়মিত। 

(৫) নিজে ক্লিক না করা প্রয়োজনে অ্যাড ব্লকার ব্যবহার করা ব্রাউজারে। 

(৬) অ্যাডসেন্স পাওয়ার শুরুর দিকেই পেইড ট্রাফিক বা পেইড ক্লিক না কেনা। 





সর্বপরি নিজে সচেতন থাকলে সাধারণ এই সমস্যা হবে না। গুগল সার্চ কনসোল নিয়মিত চেক করার পাশাপাশি ভিজিটর কোন দেশের বা ক্লিকগুলো কোন পোস্ট বা কোন দেশের সেগুলো চেক করে দেখা। অ্যাডসেন্স পাওয়ার প্রথম দিকে এই সমস্যাটা বেশি হয় সাধারণত। তাই সতর্ক থাকা অ্যাডসেন্স পাওয়ার শুরুর দিকে লিংক যেন বেশি শেয়ার করা না হয় আর নিজে নিজে ভিজিট ও ক্লিক যেন না করা হয়। অনেকেই জানে না বিষয়টা। নিজে ভিজিট করলেও সেটা অনেক সময় Invalid Traffic হিসেবে বিবেচনা করা হয়। 







যাদের সাইটে বিশেষ করে যাদের অটো অ্যাড অন করা তাদের Invalid Click বেশি আসে সাধারণত। তাই এটির দিকে নজর দেওয়া ভালো কারণ সাইটের শুরুর দিকে ক্লিক বেশি আসলে গুগল সাধারণত চেক করে বেশি বা রিভিও করে বেশি তাই বিষয়টা মাথায় রাখার চেষ্টা করা। 





আমাদের এই সাইটে ব্লগার ও গুগল অ্যাডসেন্স নিয়ে বেশ কিছু আর্টিকেল দেওয়া আছে আপনার যদি ভালো লাগে অবশ্যই শেয়ার করবেন ও নিজে পড়বেন। কোন মন্তব্য থাকলে অবশ্যই তা কমেন্ট করে জানাবেন। অনেক ধন্যবাদ মূল্যবান সময় নিয়ে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য। 

Leave a Comment