গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ভালো অনলাইনে আয় করা যায় এমন ৩টি সাইট

অনলাইনে আয় করা যায় এমন কাজের মধ্যে গুগল অ্যাডসেন্স অন্যতম একটা সাইট। বর্তমানে সবচেয়ে বেশি উপার্জন করা হয় সাধারণত গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে। গুগল একাধারে ইউটিউবসহ আরও কিছু প্রতিষ্ঠানের মালিক। আর তারা প্রত্যেক ক্লায়িন্টকে ৪৯% পেমেন্ট করে থাকে যা গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে দেওয়া হয়। আজকের আর্টিকেলে গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ভালো অনলাইনে আয় করা যায় এমন ৩টি সাইট নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ। আশা করবো সাইট ৩টির কথা জানতে পারলে আপনিও আগ্রহী হবেন এবং অনলাইনে আয় করার প্রতি আপনিও আগ্রহী হবে আশা করি। 


গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ভালো অনলাইনে আয় করা যায় এমন ৩টি সাইট



গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ভালো অনলাইনে আয় করা যায় এমন ৩টি সাইট অনেক গরুত্বপূর্ণ আজকের আর্টিকেলের জন্য। আসুন জেনে নেওয়া যাক কোন ৩টি সাইট থেকে গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে অনলাইনে ভালো আয় করা যায়। সেগুলো হলোঃ- 


(১) একটি ভালো মানের ব্লগ সাইট তৈরি করার মাধ্যমে। 

(২) একটি অনলাইন ফোরাম সাইট তৈরি করার মাধ্যমে। 

(৩) ফ্রি অনলাইন টুলস সাইট তৈরির মাধ্যমে। 


উপরের ৩টির মাধ্যমে গুগল অ্যাডসেন্স থেকে ভালো আয় করা যায়। আসুন এবার এই তিনটি সাইটের বিস্তারিত আলোচনা জেনে নিই আসলে বর্তমানে যারা গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে আয় করছে তাদের বেশিরভাগই এই তিনটার কোন না কোন একটার মাধ্যমে আয় করছে। আপনি হয়তো মনে করতে পারেন এগুলো তো জানা বিষয় আসলেও তাই আমরা জানি কিন্তু এটা জানি না গুগল অ্যাডসেন্স কোন তিনটাতে সবচেয়ে বেশি পেমেন্ট করে থাকে। বর্তমান পৃথিবীতে ব্লগিং অন্যতম একটি অনলাইন আয়ের পেশা। ব্লগিং থেকে আপনি চাইলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আরও ভালো আয় করতে পারেন। যাইহোক এখন বিস্তারিত কিছু জিনিস জেনে নেওয়া যাক। 


(১) একটি ভালো মানের ব্লগ সাইট তৈরি করার মাধ্যমে

বর্তমান ব্লগিং থেকে আয় করার পরিমাণটাও নেহাত কম না। আপনি অনেক বেশি পরিমাণে আয় করতে পারবেন যদি ভালো নিশ নিয়ে ব্লগিং করতে পারেন। ব্লগিং এর ক্ষেত্রে নিচের বিষয়গুলো মাথায় রাখলে এখান থেকেও গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে ভালো আয় করা সম্ভব। যেমন, 

  • ভালো নিশ নিয়ে কাজ করতে হবে। যেমন, স্বাস্থ্য, টেকনোলোজি, ভ্রমন, বিউটি প্রডাক্ট ইত্যাদি। 
  • যদি সম্ভব হয় গুগল অ্যাডসেন্স এর পাশাপাশি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং যুক্ত রাখতে হবে। তাতে করে আয়টা বাড়বে। 
  • ব্লগ থেকে গুগল অ্যাডসেন্স মনিটাইজ পাওয়ার শর্তগুলো জেনে নিতে হবে শুরুতেই। 
  • পপুলার পোস্টগুলোকে গুগলে Ranking করাতে হবে। 
  • হেডার ও ফুটার ভালো আকর্ষণীয় রাখতে হবে। 
  • ডাইনামিক থিম ও সাইট হতে হবে যেন ভিজিটর আকৃষ্ট হয়। 
  • তথ্যবহুল হতে হবে ভিজিটরদের কাছে। 


একটি ভালো মানের ব্লগ সাইট তৈরি করার মাধ্যমে





(২) একটি অনলাইন ফোরাম সাইট তৈরি করার মাধ্যমে
 
আপনার যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে আপনি সবার আগে গুগলে তা জানার চেষ্টা করেন। আর গুগলে অনলাইন ফোরামের লিংকগুলোই সবার আগে আসে। প্রশ্ন ও উত্তর সাইটের মত ফোরামগুলো অনেক দ্রুত চলে আসে। ফোরাম বিভিন্ন সাইটের হতে পারে। অনলাইন ফোরাম সাইটের জন্যও আপনাকে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। যেমন, 

  • ফোরামে কিছু পেইড কিছু আনপেইড সিস্টেম চালু থাকতে হবে। 
  • কিছু সুবিধা আনপেইডদের জন্য ভালো দিতে হবে। যেন তারা পেইড মেম্বারশীপ নিতে আগ্রহী হয়। 
  • চাকরীর ফোরাম করা যেতে পারে বেকারদের জন্য। 
  • প্রশ্ন ও উত্তর এর ফোরাম করতে পারেন। তাতে করে ভালো ভিজিটর আসে। 
  • ফোরামে প্রথমে গুগল অ্যাডসেন্স নয় ভিজিটরের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে। 
  • ফোরামের প্রশ্ন ও উত্তর এর পরিমাণ বাড়াতে হবে দ্রুত। 
  • ফোরামে মেম্বারা যেন আসে ও থাকে তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা রাখতে হবে।



(৩) ফ্রি অনলাইন টুলস সাইট তৈরির মাধ্যমে

একটি গুগল অ্যাডসেন্স একাউন্ট এর সাথে অনেকগুলো সাইট যুক্ত করা যায়। আর আপনি একটি সাইটের মাধ্যমে ফ্রি বিভিন্ন টুলস তৈরি করে সেটা লিংক আপ করে গুগল অ্যাডসেন্স দিয়ে ভালো আয় করতে পারেন। যেমন, ধরুন ব্লগিং করার জন্য কী-ওয়ার্ড রিসার্চ করা প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে আপনি কী-ওয়ার্ড রিসার্চ সাইট তৈরি করতে পারেন। আপনি মেইন সাইটের পাশাপাশি এই রিসার্চ সাইটে অ্যাডসেন্স বসিয়ে বাড়তি আয় করতে পারবেন। তবে এর জন্য অবশ্যই আপনাকে ডেভেলপার প্রযোজন পড়বে। 

ফ্রি অনলাইন টুলস বললাম এই জন্য কারণ আপনি প্রথমে যদি ফ্রি না বলেন তবে ক্লায়িন্ট আসবে না। বিশেষ করে বাংলার মত কী-ওয়ার্ড নিয়ে কাজ করার জন্য আপনার সাইটে বেশি ক্লায়িন্ট বা ভিজিটর আসবে না। পৃথিবীতে যতসব সাইট আছে তার বেশিরভাগই প্রথম দিকে ফ্রি ছিল। পরে জন্য ভিজিটরের চাহিদা বেড়ে গেছে তখন সেগুলো পেইড করে দিয়েছে। এর জন্য নিচের কয়েকটি বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে যদিও। 

  • Tools সম্পর্কে ভালো জানা থাকতে হবে। 
  • SEO করে গুগলে Ranking এ ১ নাম্বার রাখতে হবে টুলসগুলো। 
  • ভালো মানের ডেভেলপার রাখতে হবে টুলস তৈরির জন্য। 
  • ক্লায়িন্টদের প্রয়োজনী প্রম্নের উত্তর দেওয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে। 
  • টুলস এর ব্যবহার বিধি ও তাদের মতামত দেওয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে। 
  • ক্লায়িন্ট বা যারা টুলস ব্যবহার করবে তাদের সুবিধা বেশি দিতে হবে। 

এইভাবে আপনি অনলাইনে ফ্রি টুলস ব্যবহার করেও অনলাইনে আয় করতে পারবেন। বর্তমানে এই ধরনের সাইটের কাজ অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে আর আগামীতেও অনেক বাড়বে বলে ধারনা করা হচ্ছে। কারণ বর্তমান পৃথিবী বলা যায় অনলাইন নির্ভর পৃথিবী। 

Leave a Comment