কনটেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে আয় করার ৫ টি উপায়

কন্টেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে আয় করার ৫ টি উপায়।

কনটেন্ট রাইটিং অনেক জনপ্রিয় একটি অনলাইনের কাজ। বর্তমান সময়ে অনলাইন এর মাধ্যমে আয় করার মধ্যে গুগল এডসেন্স, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, ব্লগিং, ফেসবুক মার্কেটিং, ডিজিটাল মার্কেটিং, ইউটিউব, ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট, অনলাইন পেমেন্ট এবং কনটেন্ট রাইটিং ইত্যাদি অন্যতম।

আজকের আর্টিকেলে আমি কনটেন্ট রাইটিং সম্পর্কে সামান্য ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করব।

 

অনলাইনে আয় করার জন্য কনটেন্ট রাইটিং যে একটি অন্যতম ফ্রিল্যান্সিং হতে পারে তা আজকের আর্টিকেল এর মাধ্যমে বোঝানোর চেষ্টা করা হবে।

কন্টেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে আয় করার ৫ টি উপায়

 

এখানে কন্টেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে আয় করার ৫টি উপায় আলোচনা করার চেষ্টা করা হবে।

 

১. ফেসবুকে কনটেন্ট মার্কেটিং।

২. ডিজিটাল প্রোডাক্ট এর কন্টেন্ট রাইটিং।

৩. রিভিউ প্রোডাক্ট এর কনটেন্ট রাইটিং।

৪. নিউজ কনটেন্ট রাইটিং।

৫. টিউটরিয়াল কনটেন্ট রাইটিং।

উপরের সবগুলি কন্টেন্ট রাইটিং এর অন্যতম অনলাইনে আয় করার জন্য। গুগল এডসেন্স থেকে আয় করার জন্য আপনার অবশ্যই আর্টিকেল রাইটিং এর প্রতি ধারণা থাকতে হবে।

 

একজন ভাল আর্টিকেল রাইটার যে কোন প্রোডাক্ট অথবা ব্লগিং থেকে ভালো পরিমাণে অর্থোউপার্জন করে থাকে।

আরো পড়ুন >> গুগল অ্যাডসেন্স যুক্ত ওয়েবসাইটের স্পিড কমে যাওয়ার কারণ।

১. ফেসবুকে কনটেন্ট মার্কেটিং

ফেসবুকে কনটেন্ট মার্কেটিং করে আপনি একজন কনটেন্ট মার্কেটের হিসেবে নিজেকে পরিচয় করিয়ে দিতে পারেন অনলাইন জগতে।

 

এর মাধ্যমে আপনি আপনার কাজের ক্ষেত্র করে নিতে পারেন। একটা সময় দেখা যাবে যে ব্লগিং অথবা গুগল এডসেন্স থেকে আয় করার পদ্ধতি আপনি জানতে এবং বুঝতে পারছেন।

বর্তমান সময়ে ফেসবুক অন্যতম একটি ডিজিটাল মার্কেটিং প্লেস হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। আপনি যদি এই পেজটাকে কাজে লাগাতে পারেন তাহলে একটা সময় দেখা যাবে যে আপনি প্রচুর কাজ পাচ্ছেন।

 

আমি ফেসবুকের বেশ কয়েকটি পেইজ সম্পর্কে জানি যারা ভালো একটি কমিউনিটি তৈরি করেছে।

 

অনলাইন জগতে বিশ্বাস প্রতিষ্ঠা করা গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ যে কোন কোম্পানি অথবা যে কোন গ্রুপের ক্ষেত্রে।

 

আপনি যদি একটি গ্রুপ মেইনটেইন করতে পারেন তার মাধ্যমে আপনি কনটেন্ট রাইটার এর মার্কেটিং করে নিতে পারবেন।

 

আমাদের দেশে ভাল কনটেন্ট রাইটার এর অনেক বেশি অভাব এবং এই ক্ষেত্রটিকে আপনি ফ্রিল্যান্সিং হিসেবে ভবিষ্যতে নিতে পারবেন।

 

কনটেন্ট রাইটিং অথবা আর্টিকেল রাইটিং টা একই ধরনের জিনিস।

২. ডিজিটাল প্রোডাক্ট এর কন্টেন্ট রাইটিং

 

ডিজিটাল প্রোডাক্ট গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে টেকনোলজি নির্ভর প্রোডাক্ট, ইন্টারনেট প্রোডাক্ট, মোবাইল টেলিকমিউনিকেশন প্রোডাক্ট, কম্পিউটার টেলিকমিউনিকেশন প্রোডাক্ট ইত্যাদি অন্যতম।

এ সমস্ত ডিজিটাল প্রোডাক্ট এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রডাক্ট হল অনলাইন সফটওয়্যার বেস্ট প্রডাক্ট।

 

করোনাকালীন সময়গুলোতে মানুষ অনলাইন সফটওয়্যার এর মাধ্যমে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগের চেষ্টা করেছে।

 

অনলাইনের মাধ্যমে বিজনেস মিটিং করা, নিজেদের কাজ সাবমিট করা, বাসায় বসে ক্লায়েন্টের কাজ করে দেওয়া,

 

বাসায় বসে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নিজেদের কমিউনিকেশন তৈরি কোরে নেওয়া এবং বাসায় বসে পরিবারের সাথে সময় কাটিয়ে নিজের কর্মকে উজ্জীবিত করার অন্যতম একটি বৈশিষ্ট্য ডিজিটাল যুগে।

 

আর এই ডিজিটাল যুগে ডিজিটাল প্রোডাক্ট নিয়ে রিভিউ অথবা কনটেন্ট রাইটিং করে নিতে পারলে প্রচুর মার্কেটিং করে নিতে পারবেন নিজের সম্পর্কে। যেমন আপনি একটি এসির বিজনেস শুরু করবেন। 

 

বিভিন্ন কোম্পানির এসি গুলো যখন আপনি কিনে সেগুলো সেল করবেন অবশ্যই সেই সকল বন্ধু গুলো সম্পর্কে একটি ভালো বর্ণনা প্রয়োজন হবে। 

 

একজন ভাল মানের আর্টিকেল রাইটার ছাড়াই বর্ণনাগুলো আপনি কখনোই ভালোমতো ক্লায়েন্টের কাছে পৌঁছাতে পারবেন না।

 

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য অবশ্যই আপনাকে একজন ভাল মানের কনটেন্ট রাইটার করে নিতে হবে। এবং এর জন্য আপনাকে মোটা অংকের টাকা পরিশোধ করতে হতে পারে।

৩. রিভিউ প্রোডাক্ট এর কনটেন্ট রাইটিং

বর্তমান সময়ে আপনি যদি কোনো পণ্য অনলাইনে বা কোন গ্রুপের মাধ্যমে কিন্তে চান তাহলে অবশ্যই সেই পণ্যটি সম্পর্কে নিচের দিকে দেখবেন রিভিউ লেখা থাকে। 

 

এমনকি আপনি যদি কোন অ্যাপস ইন্সটল করতে চান আপনার মোবাইলে সেক্ষেত্রেও দেখবেন যে সেই অ্যাপস এর নিচে বাম দিকে রিভিউ লেখা থাকে।

 

আমরা সাধারণত সে সমস্ত প্রোডাক্ট গুলো কে বেশি মূল্যায়ন করে থাকি যে সমস্ত প্রোডাক্ট এর রিভিউ সংখ্যা অনেক বেশি। 

সাধারণত অল্প থাকলে চিন্তা করে যে এটা কম্পানি পলিসি করে রিভিউ তৈরি করে নিয়েছে কিন্তু যদি কোন প্রোডাক্টের অনেক বেশি পরিমাণে রিভিউ থাকা যায়

 

এবং ভালো মন্দ দুটো দিকই প্রকাশ করেছে এর মাধ্যমে তাহলে সেই রিভিউটি প্রকৃত হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে।

নিজেকে একজন আর্টিকেল রাইটার হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য আর্টিকেল রাইটিং করে সেটির প্রচার এবং প্রসার ঘটানো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য। 

 

যখন একটি পণ্য সম্পর্কে আপনি পরিপূর্ণ ধারণা নিয়ে এসেছে সুন্দর করে প্রকাশ করতে পারবেন তখন দেখবেন বিভিন্ন কোম্পানি আপনার কাছে সেই পণ্যের রিভিউ লিখার জন্য আর্টিকেল রাইটার হিসেবে হার করছে।

আর্টিকেল রাইটিং এর মাধ্যমে যে আপনি অনলাইনে আয় করতে পারেন সেটি কেবল গুগল এডসেন্স এবং লগইন দেখলেই বুঝে থাকতে পারেন।

 

অনেক সময় আমরা গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য বিভিন্ন পণ্যের সুন্দর করে রিভিউ তৈরি করে দেই।

এর মাধ্যমে কোম্পানির দীর্ঘস্থায়ী কাজের একটি সূত্র তৈরি হয়ে যায় পরবর্তীতে যখন কোম্পানিটি কনটেন্ট রাইটিং

 

অথবা আর্টিকেল রাইটিং নিয়ে কাজ করতে চায় তখন অবশ্যই আপনাকে যোগাযোগ করার জন্য বলবে অথবা তারাই আপনার সাথে যোগাযোগ করবে।

 

৪.নিউজ কনটেন্ট রাইটিং

নিউজ আর্টিকেল রাইটিং বা নিউজ কনটেন্ট রাইটিং বর্তমান সময়ে অন্যতম অন্যতম  অনলাইনে আয় করার জন্য।

 

বিভিন্ন নিউজ সাইটের জন্য দেখে থাকবেন যে ভালো মানের কনটেন্ট রাইটার প্রয়োজন হয়। আর্টিকেল রাইটিং এর জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রতিযোগিতার উৎসব করা হয় নিউজের জন্য।

 

আপনি যদি নিয়মিত কন্টাক্ট করতে পারেন বাংলা অথবা ইংরেজি বিভিন্ন নিউজপেপার আপনাকে কনটেন্ট রাইটার হিসেবে কিছু সম্মানের সাথে তাদের সাথে কাজ করার জন্য অফার করবে।

 

অথবা আপনি যদি একটি নিউজ সাইট তৈরী করে রাখতে পারেন তাহলে সেই নিউ সাইটে নিয়মিত আর্টিকেল প্রোভাইড করে ৬ মাস থেকে ১ বছর পরে আপনি এখান থেকে ভাল অঙ্কের আয় করে নিতে পারবেন।

 

নিউ সাইটের জন্য অনেক বড় ধরনের কনটেন্ট লিখতে হবে বিষয়টা এরকম নয় তবে একটা বিষয় নিয়ে পরিপূর্ণ জ্ঞান না থাকলে সে বিষয়ে সম্পর্কে আপনি কখনোই লিখতে পারবেন না। 

 

এজন্য অবশ্যই আপনাকে মাথায় রাখতে হবে একটি নিউরো সার্জারি তৈরি করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনি সেটি নিয়মিত আপডেট রাখতে পারবেন কিনা সেই বিষয়টি অবশ্যই লক্ষ্য রাখবেন।

 

কারণ জন নির্দিষ্ট পরিমাণে জনসংখ্যা হতো এবং জনশক্তি ছাড়া কখনো এই কাজটি একা করা সম্ভব নয়। 

 

নিউজ সাইট এর সবচেয়ে বড় অসুবিধা হলো নিউজ গুলো যদি আপনি প্রতিদিন প্রতিনিয়ত আপডেট না করেন তাহলে আপনার Rank অটোমেটিক্যালি কমে যাবে।

 

৫. টিউটরিয়াল কনটেন্ট রাইটিং

টিউটিরিয়াল আর্টিকেল রাইটিং অথবা বিভিন্ন বিষয়ে টিউটিরিয়াল নির্ভর কনটেন্ট রাইটিং বর্তমান সময়ে কন্টেন্ট রাইটিং এর জন্য অন্যতম একটি কাজ।

 

আমরা সাধারনত টিউটোরিয়ালগুলো ইউটিউব ভিডিওর মাধ্যমে দেখে থাকে।

 

আমরা বই পড়তে পছন্দ করি বিধায় ভিডিও দেখে দেখে অনেক কাজ শিখে থাকি।

 

কিন্তু প্রকৃতপক্ষে কোন কাজ শেখার এবং তা নিয়মিত করার জন্য অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো টিউটিরিয়াল নির্ভর কোন বই পড়া। 

 

এখানে একটা বিষয় লক্ষ্য করা যায় যে টিউটোরিয়াল নির্ভর বইগুলোতে সুন্দর করে চিত্রের মাধ্যমে দেখানো হয়েছে।

 

এবং আপনি সেই চিত্র দেখে দেখে সুন্দর করে করে নিতে পারে। তবে বর্তমান সময়ে নিউজ কন্টাক্ট গুলোর জন্য আপনাকে অবশ্যই সঠিক নিউজ তথ্য সংগ্রহ করে তারপরে সেটি পাবলিশ করতে হবে।

 

এটা ঠিক বর্তমান সময়ের জন্য খুব ভালো পেমেন্ট করা হয়ে থাকে না। কিন্তু কেন করা হয়ে থাকে না সে বিষয়টি সম্পর্কে আপনাদের জানা প্রয়োজন।

 

বর্তমান সময়ে  প্রয়োজনে আমরা এটার সাথে যোগাযোগ করব যদি আপনি আর্টিকেল রাইটিং ভালো করতে পারেন।

 

আমাদের প্রচেষ্টা হলো প্রথমে আপনাকে একটি ডেমো দেওয়া হবে এবং সেই ডেমো অনুসারে আপনি যা লিখবেন বা লিখতে চাচ্ছেন সেগুলো পর্যবেক্ষণ করে আপনাকে সিলেট করা হবে।

 

এবং সিলেক্ট করলে আপনি পাবেন অনলাইনে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে অথবা আপনি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস থেকে একটা আইডি কার্ড করে দিতে পারেন।

 

ঢাকা স্টুডেন্ট যখন রাস্তার মোড়ে বসে সিঙ্গারা বিক্রি করে কখন জেনে নিবেন। তখন আমরা তাকে কি বলে সম্বোধন করে থাকি। যে বেচারা ছেলেটি আজ লেখাপড়া করে সিঙ্গারা বিক্রি করছে।

 

অনেক ধন্যবাদ মূল্যবান সময় নিয়ে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য এবং আর্টিকেল সম্পর্কে আপনার কোন মন্তব্য থাকলে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

 

Leave a Comment