সেরা ব্যবসায়ী বা উদ্যোক্তা হতে ইলন মাস্ক এর ৪টি আইডিয়া

বর্তমান পৃথিবীর সেরা কম্পানিগুলোর দিকে যদি নজর দেওয়া যায় তবে সেগুলোর সবগুলোই ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। Amazon, E-Bay, Ali Baba এদের মত পৃথিবীর বড় বড় কম্পানিগুলোর মালিকরাই পৃথিবীর মধ্যে সেরা সম্পদের মালিক হিসেবে আছেন। আজকে আমি সেরা ব্যবসায়ী হওয়ার জন্য পৃথিবীর সেরা একজন সফল ব্যবসায়ীর ৪টি আইডিয়া বা তার ৪টি কাজ সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করবো। আয়রন ম্যান হিসেবে পরিচিত এই ব্যাক্তিকে একটা প্রতিষ্ঠানের সাথে তুলনা করা হয়। তার নাম হলো ইলন মাস্ক বা

Elon Musk Idea
Elon Musk তিনি একাধারে পেপাল বা Paypal এর প্রতিষ্ঠাতা, জনপ্রিয় গাড়ি কম্পানি তেসলার প্রতিষ্ঠা এবং SpaceX এর প্রতিষ্ঠাতা। একজন মাত্র ব্যাক্তি হয়ে তিনি এতগুলো সফল প্রতিষ্ঠান তৈরি করেছেন। সেই ইলম মাস্ক এর ব্যবসা পরিচালনা করা নিয়ে অনেকের অনেক ধরনের ধারণা আছে। অনেকেই চেষ্টা করেছেন তার ব্যবসা পরিচালনার পদ্ধতিটা অনুসরণ করার জন্য। একটা ম্যাগাজিন তার ব্যবসা পরিচালনা করার বিষয়টাতে ৪টি বিষয় খুজে পেয়েছেন। আজকে সেই মূল্যবান ৪টি বিষয় নিয়েই আলোচনা করার চেষ্টা করবো। 

 

আলোচনার আগে জেনে নেওয়া যাক কেই এই ইলন মাস্ক তার সম্পর্কে। ১৯৭১ সালে সাউস আফ্রিকায় জন্ম ইলন মাস্ক তিনি ১৯৮৪ সালে একটা গেম তৈরি করেছিলেন যা তিনি একটা ম্যাগাজিনে ৫০০ ডলারের বিনিময়ে বিক্রি করেছিলেন। তিনি মাত্র ১৭ বছর বয়সে আমেরিকায় আসেন এবং পেনসেলভেনিয়াতে অর্থনীতিতে পড়াশোনা করেন। পরে তিনি পদার্থ বিজ্ঞানে বিএসসি শেষ করেন। তিনি প্রতিদিন প্রায় ১০ ঘন্টা করে বই পড়তেন। ধারণা করা হয়ে থাকে তার এই বই পড়ার অভ্যাসটাই তাকে এত আত্মবিশ্বাসী এবং সফল ব্যবসায়ী হিসেবে গড়ে তুলেছে। তিনি ১৯৯৫ সালে X.com নামে একটা প্রতিষ্ঠান করেন যা পরবর্তীতে পেপাল নামে পরিচিতি লাভ করে। ২০০২ সালে তিনি SpaceX প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি নাসার কাছ থেকে তথ্য না নিয়ে নিজেই নাসার মত একটা প্রতিষ্ঠান ব্যাক্তিগত অর্থ থেকে তৈরি করেন। আজকের দিনে নাসার মত কম্পানিও তার কম্পানি থেকে পণ্য কিনে কাজ পরিচালনা করে থাকে। 

 

 

Elon Musk PayPal

 (ক) কর্মদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখা 

আপনি আপনার কম্পানির কর্মচারীদের সাথে যত কঠিন ব্যবহার করেন তবে কর্মচারীরা আপনার কাছে কোন কিছু শেয়ার করবে না। আর এই বিষয়টা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয় যে, কর্মচারীদের সাথে অনেক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক থাকতে হবে। কোন মিটিং করার সময় যদি আপনি সবার সাথেই ফ্রি আর অনেক ভালো সম্পর্ক তৈরি করতে পারেন তাহলে অনেক ভালো ভালো আইডিয়া পাবেন আপনি আপনার কর্মীদের কাছ থেকে। অনেক সময় দেখা যায় যে ছোট কর্মী কোন সমস্যাকে অনেক করেই সমাধানের উপায় বের করে ফেলে আর সে আপনাকে অনেক সময় ভয়ে সেটা বলতে চায় না। তাই কর্মচারীদের সাথে এমন সম্পর্ক তৈরি করুন যেন তারা আপনাকে প্রতিটা বিষয় শেয়ার করতে পারে। কম্পানির ভালো হবে কিসে আর কম্পানির মন্দ হবে কিসে সেই বিষয়টা যেন আপনার কাছে তারা শেয়ার করতে পারে সেই বিষয়টা করার জন্য আগে থেকে তৈরি হোন। অফিসে কোন কোন কাজ করলে কর্মচারীরা আপনাকে বন্ধু মনে করবে বা তারা আপনাকে নিজেদের কথা নিজেদের মত করে বলবে সেই দিকটার দিকে নজর দিন। 

 

ইলন মাস্ক তার কর্মীদের সাথে অনেক ভালো ব্যবহার করতেন। আর তিনি তার কর্মীদের সমস্যাগুলোও অনেক সময় নিয়ে শুনতেন ও বুঝতেন। তার সবগুলো প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা তার কাছে গিয়ে নিজেদের মতামতকে জানাতে পারে এবং তিনি সেই মতামতকে গুরুত্ব দিয়ে শোনেন এবং দেখেন। যার ফলে কর্মীরাও নিজেদের কাজ করাটাকে একটা দায়িত্ব হিসেবে দেখেন। আজকের দিনে যখন গুগলের কর্মীরা আন্দোলন করে অধিকার আদায়ের জন্য সেখানে ইলন মাস্ক এতগুলো প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করেন কোন সমস্যা ছাড়াই। তার কর্মীদের বেতন অনেক ভালো এবং তিনি প্রত্যেকটা কর্মীর সাথে ভালো ব্যবহার করেন থাকেন। আর কর্মদের অনেক ভালো সুযোগ সুবিধাও দিয়ে থাকেন। দেখুন তো কর্মচারীরা যদি আপনার অনুগত হয় আর তারা যদি আপনাকে বেশি পছন্দ করে তাহলে আপনার কোন সমস্যা হলে যদি সেটা তাদের কাছে শেয়ার করেন বিষয়টা কি হতে পারে তখন। আমার তো মনে হয় কোন কর্মচারীই তার মালিকের ক্ষতি হোক সেটা চাইবে না যদি সেই মালিক তাদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ধরে রাখে। তাই প্রতিষ্ঠান ছোট হোক আর বড় হোক চেষ্টা করুন কর্মীদের সাথে ভালো ব্যবহার করার। প্রয়োজনে তারা কি চায় বা কি সুযোগ সুবিধা তাদের প্রয়োজন বিষয়গুলো খোলামেলাই আলোচনা করেন এবং সেই কাজটা নিজেই করেন কোন মিটিং ডেকে বা নিজে সবার সামনে গিয়ে। আসলে কথা বলা অনেক বড় একটা গুন এতে করে সম্পর্ক আরও গভীর হয়ে থাকে। 

 

Elon Musk SpaceX

একজন প্রতিষ্ঠান প্রধান বা CEO হিসেবে আপনাকে অবশ্যই কাজের পরিবেশের ব্যপারে অনেক বেশি সচেতন হতে হবে। কারণ কোন কর্মী যদি কোন মুল্যবান কোন চিন্তা বা কোন পদ্ধতি বা আইডিয়া সম্পর্কে ভাবেন আর সেটা যদি আপনার ব্যবহারের কারণে বলতে সাহস না পান সেটা আপনার জন্য ক্ষতিকর হিসেবেই বিবেচিত হবে। অনেক সময় দেখা যায় অনেক ভালো ভালো ব্যবসায়ীক আইডিয়া কর্মীদের কাছ থেকে আসে। আর তাই একটা কম্পানির মালিক হিসেবে আপনাকে অনেক ভালো পরিবেশ গড়ে তুলতে হবে কর্মীদের সাথে। কারণ প্রতিষ্ঠানের প্রধান যদি সবার সাথে দূরত্ব বজায় রাখে তবে কর্মীদের সাথে ভালো সম্পর্ক কখনই গড়ে উঠবে না। নতুন আইডিয়া ছাড়া কোন প্রতিষ্ঠানই বেশি দুর যেতে পারে না। তাই কম্পানির মালিক হিসেবে বা ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য আপনাকে বিষয়টা অবশ্যই গুরুত্ব সহকারে দেখতে হবে। 

 

(খ) সততা 

সততা প্রত্যেক ব্যবসা বা উদ্যোক্তার জীবনের অন্যতম একটা শব্দ। আর এই ইলন মাস্ক তিনি তার সততার কারণেই এতগুলো সফল প্রতিষ্ঠানের মালিক হতে পেরেছিলেন। তিনি প্রত্যেকটা পণ্য তৈরি করার পরে সেটা গায়ে যে সকল বক্তব্য দিয়ে দেন তার প্রত্যেকটাই তার পণ্যের মধ্যে বিদ্যামান থাকে। যার কারণে তিনি তার পণ্যগুলো ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করতে পারেন। এমনকি নাসার মত প্রতিষ্ঠান তার প্রয়োজনে কোন পণ্য দরকার পড়লে এই ইলন মাস্ক এর কম্পানি থেকে নিয়ে থাকে। কারণ ইলন মাস্ক এর কম্পানির পণ্য যতটুকু লিখা ততটুকুই দেওয়া থাকে। তিনি যখন কোন মিটিং এ বসেন তখন সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে জানেন না সেটা তিনি সবার সামনে অকোপটেই শিকার করে ফেলেন। গোজা মিল দিয়ে কোন বক্তব্য তিনি কখনও দেন নাই আর তিনি এটা অনেক বেশি পছন্দ করে যে যেটা তার জানা নাই সেটা সম্পর্কে তিনি যদি কোন মন্তব্য করেন তবে সেটা সত্য হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে না বা গোজা মিল দিয়ে হয়ে থাকে। 

 

Elon Musk Tesla

কোন ক্রেতা আসলে তিনি যেই জন্য পণ্যটা কিনবেন তা যদি তার কম্পানির পণ্যের মধ্যে না থাকে তবে যে কোন কম্পানির মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে গোপন রেখে সেই পণ্যটাই সেল করার চেষ্টা করা হয়। তিনি ইলন মাস্ক এমন একজন ব্যাক্তি যিনি অকোপটে শিকার করেন এবং ক্রেতাও সেই কারণেই তাকে বিশ্বাস করে। তিনি যখন পেপাল তৈরি করেছিলেন তখন প্রথম দিকে তিনি লোকজনের খুব বেশি সাড়া পাচ্ছিলেন না। তারপর তিনি বলেন আমরা একদল তরুন মিলে যেই প্রতিষ্ঠানটা করেছি এটার মাধ্যমে আপনার যে সকল সুবিধা পাবেন তার মধ্যে অন্যতম সুবিধাগুলো এগুলো। যখন তিনি তার পেপাল কম্পানির সকল বিষয় জনগনের সামনে তুলে ধরেন তখন পেপাল কে সবাই গ্রহণ করা শুরু করলো। এবং বর্তমান পৃথিবীর অন্যতম একটা মাধ্যম হিসেবে পরিচিত হতে লাগলো। বর্তমানে আমাদের দেশের ফ্রিল্যান্সারদের কাছে অনেক পরিচিত একটা নাম হলো এই পেপাল। পেপালের মাধ্যমে আত্মরজার্তিক সকল পেমেন্ট বা পণ্য কিনে সেটার টাকা পরিশোধ করা যায়। পেপাল ছাড়া এই সেবার এত ভালোভাবে অন্য কোন প্রতিষ্ঠান আজ পর্যণ্ত দিতে পারে না। 

 

তাই তার এই গুণটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ যে আপনার কোন প্রডাক্ট এর মধ্যে যেসকল গুনাগুন থাকবে আপনি সেগুলোই জনগনকে বলবেন। আর যেটা থাকবে না সেটা নিজে থেকেই বলবেন এই গুনাগুন নেই। তাহলে ক্রেতারা আপনার প্রতিষ্ঠানের পণ্যগুলো সহ আপনাকে বিশ্বাস করবে এবং এটা একটা মার্কেটিং হিসেবে কাজ করবে আপনার প্রতিষ্ঠানের। ইলন মাস্ক যতগুলো প্রতিষ্ঠান বা কম্পানি তৈরি করেছেন সবগুলোতেই সততার বিষয়টা অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি কখনও কোন কর্মীকে মিথ্যা কথা বলে না বা তাদেরকে মিথ্যা বলে আশ্বস্ত করেন না। তিনি নিজে যতটুকু জানেন ততটুকুই কর্মীদের মাঝে শেয়ার করেন। ইলন মাস্ক এর কোন কথা বা কাজ বা কোন প্রতিশ্রুতি যদি দেন সেটা অবশ্যই করেন। আর এই বিষয়টা তাকে একজন সফল ব্যবসায়ী হিসেবে গড়ে তুলতে সাহায্য করেছে। ইলন মাস্ক হয়তো এই একটা নীতির কারণেই সবগুলো ব্যন্ডকে ক্রেতাদের কাছে অনেক বড় এবং ভালা হিসেবে গড়ে তুলেছে। কারণ তিনি যেসব কথা বলেন তার ব্যন্ডগুলোতে ঠিক সেসব বিষয় গুলোই থাকে। তিনি কখনও এমন কিছু বলেন না যেটা তার ব্যান্ডের মধ্যে নেই। আর এই সততাই তাকে এত উপরে নিয়ে গেছে। 

 

 

(গ) ক্রেতার সন্তুষ্টির দিকে বেশি মনোযোগী হওয়া 

আমরা অনেকেই ব্যবসা করার ক্ষেত্রে লাভের বিষয়টাকেই বেশি মূল্যায়ন করে থাকি বা কোন পণ্যে কেমন লাভ হবে সেই বিষয়টাতেই বেশি সময় দিয়ে থাকি। আজকের দিনে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটা সার্চ ইজ্ঞিন হলো গুগল বা Google এই প্রতিষ্ঠানকে চেনে না এমন লোক পাওয়া যাবে না। আবার গুগলে প্রতি কমপক্ষে একবার হলেও সার্চ করে না এমন লোক নেই বললেই চলে। যারা ইন্টারন্টে জগতে বিচরন করে তাদের বেশিভাগই গুগল থেকে তথ্য নিয়ে কাজ করে থাকে। আপনার জীবনে প্রয়োজন এমন তথ্য সবকিছুই আছে এই গুগলের কাছে। আপনার প্রয়োজন অথচ গুগলের কাছে সেই তথ্য নেই এমনটা হবেই না। প্রতিদিনই এত বেশি শব্দ নিয়ে কাজ করছে গুগল সেটা বলাই বাহুল্য। অথচ এই গুগলে সার্চ করার জন্য কোন গ্রাহককে টাকা দিতে হয় না। বিনা টাকাতেই আপনাকে হাজারো তথ্য দিয়ে থাকে। আপনি কি কখনও চিন্তা করেছেন বিষয়টা। একটা কম্পানি বিনা লাভেই আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় সকল তথ্য সরবরাহ করে থাকে। আপনি ইন্টারনেট সংযোগ নিয়ে যে কোন কিছু সার্চ করলেই মূহূত্বের মধ্যেই আপনাকে তা জানিয়ে দিচ্ছে। গুগল একাউন্ট থাকতেই হবে বিষয়টাও এমন না আবার গুগল একাউন্ট আপনাকে ইন্টারনেটে ফ্রি জায়গা দিচ্ছে সেটাও আবার ফ্রিতেই দিচ্ছে। 

 

Elon Musk Idea3

নিজেকে প্রশ্ন করলেই পাবেন উত্তরটা। এর আসল কারণটাই হলো ক্রেতাদের সন্তুষ্ট করা। আপনি সকল তথ্য পাচ্ছেন বিধায় তো গুগলের কাছে যাচ্ছেন। আর গুগলের গুগল ছাড়াও আছে আরও অনেক প্রতিষ্ঠান যেগুলো মাধ্যমে সে আয় করে থাকে। আবার গুগল আপনার কাছ থেকে টাকা না নিলেও বিভিন্ন ভাবে সে আয় করে থাকে অথচ আপনার থেকে কোন অর্থ সে নেয় না। বিভিন্ন কম্পানির সেবা প্রদানের মাধ্যমে সে নিজের কম্পানিকে পৃথিবীর সবচেয়ে কম্পানির মধ্যে একটাতে পরিণত করেছে। তাই ক্রেতাদেরকে কিভাবে সন্তুষ্ট করতে হবে আর কিভাবে সন্তুষ্ট করলে আয় করা যাবে সেটা গুগলের সেবার দেখে শেখা উচিত। কারণ ক্রেতা সন্তুষ্ট হলেই ক্রেতারা আপনার কম্পানিতে আসবে। পৃথিবীতে অনেক সার্চ ইজ্ঞিন থাকলেও গুগলের মত সেবা কেউ দিতে পারে না। ইলন মাস্ক এর একটা ঘটনা বলি এবার। 

 

তিনি টেসলার প্রথম দিকে যখন টেসলার ব্যাংক একাউন্ট মাত্র ৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছিল তখন নিজের পকেটের অর্থ দিয়ে কম্পানিকে টিকিয়ে রেখেছিলেন। অন্য কেউ হলে সেই কম্পানিকে দেউলিয়া ঘোষনা করার জন্য চেষ্টা করতো আর সেই সময়টাতে তিনি পেপালের মত প্রতিষ্ঠানকে বিক্রি করে দিয়ে টেসলাকে সাপোর্ট দেন। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের গাড়ির অর্ডার নিয়ে সেটা তৈরি করে দেওয়ার মত অর্থ যখন ছিল না তখন ইলন মাস্ক ক্রেতাদেরকে অর্থ দিয়ে দেবেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তবে সেটা করতে হয় নাই তাকে তিনিই এই সমস্যা থেকে খুব ভালোভাবেই বের হতে পেরেছিলেন তখন। আর আজকে টেসলার মত ব্যন্ড খুব কমই আছে পৃথিবীতে। তাই একজন সফল ব্যবসায়ী বা উদ্যোক্তা হতে গেলে আপনাকে অবশ্যই ক্রেতাদেরকে সন্তুষ্ট রাখতে হবে তাছাড়া আপনি আপনার ব্যবসাটাকে বড় করতে পারবেন না কখনও। 

 

 

(ঘ) নতুন কিছুর প্রতি বিনিয়োগ করা বা নতুন কিছু খোঁজা 

নতুন কিছু খোজার মানসিকতা থেকেই ইলন মাস্ক এতগুলো সফল কম্পানি তৈরি করেছেন। তিনি প্রত্যেকটা বিষয় নতুন ভাবে দেখেন এবং কোন একটা কাজ করার সাথে সাথে নতুন কিছু করার জন্য রেডি থাকেন। একটা কাজকে তিনি বিভিন্ন ভাবে দেখেন। যেমন, নাসার কাছে তিনি যখন একটা বিষয় নিয়ে যান তখন নাসা সেটা তাকে জানাতে চায় নাই তারপরের ঘটনা আমরা সবাই জানি। তিনি SpaceX নামে একটা কম্পানিই তৈরি করেন। আর তিনি আগামী বিশ্বকে মঙ্গলগ্রহে নিয়ে যেতে নিজে থেকেই স্বপ্ন দেখাতে শুরু করেন। স্বপ্ন দেখা ভালো আর সেটা নিয়ে কাজ করা তো আরও ভালো। তারপর তিনি যখন গাড়ির ব্যবসা বা কম্পানি শুরু করেন তখন সেই গাড়িটাও আধুনিক মানের গাড়ি। টেসলা বিদ্যুৎকে কাজে লাগিয়ে গাড়ি চালানোর জন্য চেষ্টা করলো এবং সফলও হয়ে গেলো। তিনিই পদার্থ বিজ্ঞানের উপর অনেক গুলো বই পড়েছিলেন বিধায় হয়তো তিনি এতকিছু নিয়ে চিন্তা করতে পেরেছেন। আর নতুন একটা বিষয় সবাইকে আরও বেশি কৌতুহলী করে তুলবে সেই ধারণা থেকেই তিনি টেসলার মডেল ও ডিজাইন তৈরি করেন। 

 

নতুন কিছুর প্রতি বিনিয়োগ করা বা নতুন কিছু খোঁজা

এখন তিনি চিন্তা করছেন মঙ্গল গ্রহে যাওয়া যায় কিভাবে যেখানে নাসার মত প্রতিষ্ঠান এত বড় চিন্তা করার সাহস করে নাই সেখানে তিনি সেটা নিয়ে কাজ শুরু করেছেন। তিনি নিজে তো স্বপ্ন দেখেনই সেই সাথে স্বপ্ন দেখাতে পছন্দ করেন পুরো বিশ্বকে। তার নতুন নতুন উদ্ভাবনী চিন্তাগুলো পুরো পৃথিবীতে আকৃষ্ট করে থাকে। তিনি তার পুরো লাভের টাকার অনেক বড় একটা অংশ ব্যায় করেন নতুন কিছু খোজার জন্য। ইলন মাস্ক যখন পেপাল আবিষ্কার করলেন তখন অনলাইনে লেনদেন করার ধারনাটাই পাল্টে যায়। আগে যেখানে পকেটে করে টাকা নিয়ে যেতে হতো বা ব্যাংকে গিয়ে লেনদেন করতে হতো সেখানে পেপাল আসার পরে অলেইনে মূহূত্বেই লেনদেন করা যায় তার এই আবিষ্কারের মাধ্যমে। এর পরে তিনি যখন পরিবেশ নিয়ে চিন্তা করে টেসলার বাজারে আনেন তখন মানুষ সেটাকেও অনেক ভালো ভাবেই নিয়েছে। তিনি তার ব্যবসার লাভের অনেকাংশই ব্যায় করেন নতুন আইডিয়া তৈরি পেছনে। তিনি যে শুধু আইডিয়াই করেন সেটা নয় তিনি সেটা বাস্তবেও রূপ দেন। তিনি নতুন আইডিয়াগুলোকে অনেক বেশি মূল্যায়ন করেন এবং তার এই নতুন আইডিয়ার পেছনে সময় ও অর্থ ব্যয় করাটা অনেক বড় একটা বিষয় এবং তার নাম ও খ্যাতি অর্জনের অনেক বড় একটা অংশ হিসেবে কাজ করে। একজন ব্যবসায়ী ক্রেতাদেরকে নতুন কিছু দেবেন এটাই অনেক বড় কিছু। 

 

পরিশেষে বলবো, ব্যবসায়ী পৃথিবীতে অনেক আছেন কিন্তু ইলন মাস্ক এর মত ব্যবসায়ী পৃথিবী অনেক কমই আছে। উদ্যোক্তা বা ব্যবসায়ী হিসেবে তিনি সকলের থেকে আলাদা। যে কোন বিষয়ে সফল হতে গেলে তার আগে সেই কাজ বা তার মত কাজ করে যারা সফল হয়েছেন তাদের সেই আইডিয়া বা পদ্ধতিগুলো জেনে নেওয়া অনেক ভালো একটা গুন নিজেকে সেই কাজে সফল করার জন্য। আর এই কাজটা ইলন মাস্ক নিজের ব্যবসা বা উদ্যোক্তার প্রতিটি ক্ষেত্রে করে থাকেন। তাই আমি বলবো আপনি ইলন মাস্ক এর মত বা তার মত চিন্তা করে নিজের কাজগুলোকে সফলতার দিকে নিয়ে যেতে পারেন। ম্যাগাজিনটিতে উপরের এই চারটি গুণের কথাই বলেছিল যার প্রত্যেকটা বিষয় অনেক গুরুত্বসহকারে দেখতেন ইলন মাস্ক। অবশ্যই মনে রাখতে হবে প্রত্যেকটা মানুষ আলাদা এবং তাদের কাজের ধরনটাও আলাদা। তার ব্যবসায়ীক দিক অনুসরণ করা কতটা যুক্তিযুক্ত সেটা বলার চাইতে আমি বলবো তার আইডিয়া বা কর্মপদ্ধতিগুলো অনুসরণ করা যেতে পারে। 

 

Elon musk4

ইলন মাস্ক শুধু যে একজন টেকনিক্যাল জিনিয়াস সেটাই নন তিনি ব্যবসাটাকে অনেক ভালো বোঝেন। শুধু টেকনিক জানালেই জিনিয়াস বা সফল হওয়া যায় না কিছু কর্মপদ্ধতিও জানতে হয় যেটা ইলন মাস্ক এর মধ্যে পাওয়া যায়। উপরের ৪টি আইডিয়া আপনার জন্য একজন সফল ব্যবসা বা কর্মপরিকল্পনা তৈরি করতে সাহায্য করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। আশা করি এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসা পরিচালনা করার নতুন কিছু পদ্ধতি পেয়েছেন এবং এসব তথ্য আপনাকে আপনার কর্মপরিকল্পনা তৈরি করতে অনেক বেশি সহযোগীতা করবে। আপনার মূল্যবান মতামত জানাবেন এবং অনেক ধন্যবাদ মূল্যবান সময় নিয়ে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য। 


তরুণদের সরকারী চাকুরীতে আগ্রহের কারণ

২০২১ সালে ব্যবসা শুরুর আগে ৮টি দক্ষতা অর্জন করতে হবে


Leave a Comment